মঙ্গলবার,  ০৬ ডিসেম্বর ২০২২

 

২২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯ ,  ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভাওয়ালের কন্ঠ :: Bhawaler Kontho - ভাওয়ালের খবর

গাজীপুরে কারাতে পদক বিজয়ী দুই কিশোরীকে সংবর্ধনা

প্রকাশিত: ২১:৫৩, ১৫ নভেম্বর ২০২২

গাজীপুরে কারাতে পদক বিজয়ী দুই কিশোরীকে সংবর্ধনা

বিজয়ী দুই কিশোরীকে সংবর্ধনা

বাংলাদেশ মহিলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় রূপায়ন সিটি শেখ রাসেল অনুর্ধ্ব ১৫ আন্ত:জেলা নারী কারাতে প্রতিযোগিতায় স্বর্ণ ও তাম্র পদক বিজয়ী দুই অনাথ কিশোরীকে সংবর্ধনা দিয়েছে গাজীপুর জেলা কারাতে অ্যাসোসিয়েশন ও মার্শাল শাহ্জাদা কারাতে একাডেমি।

গাজীপুর স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়। সম্প্রতি এ আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের যুগ্মসচিব শাহনওয়াজ দিলরুবা খান। গাজীপুর জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমানের সভাপতিত্ব এবং গাজীপুর জেলা কারাতে অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও মার্শাল শাহ্জাদা কারাতে একাডেমির প্রধান প্রশিক্ষক মার্শাল শাহ্জাদার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন গাজীপুর মহিলা ক্রীড়া সংস্থা ও লেডিস ক্লাবের সভাপতি নিঝুম বিন্দিয়া, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মো. জামাল হোসেন, গাজীপুর মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হোসনে আরা সিদ্দিকী জুলি, গাজীপুর জেলা কারাতে অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি অ্যাড. খান্দকার সোলায়মান ও আবুল বাশার (বাদশা)।

প্রধান অতিথি বলেন, খালি হাতে নিজের আত্মরক্ষা, শারীরিক ও মানসিক বিকাশসহ সামাজিক গুণাবালী অর্জনে কারাতে সহায়তা করে। কারাতে একজন মানুষকে সাহসি করে তোলে। কারাত স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ সবাইকে উত্ত্যক্তাকারী ও ছিনতাইকারীর হাত থেকে নিজেকে এবং অন্যদের রক্ষায় সাহায্য করে। কারাতে শারীরিক সক্ষমতা ও মানসিক বিকাশ ঘটায়। কারাতে শেখার মাধ্যমে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপসহ শরীরের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। স্বাস্থ্য ঠিক রাখা এবং মনকে প্রফুল্ল রাখতেও ভূমিকা রাখে কারাতে। বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও দিন দিন এর চাহিদা বাড়ছে। কারাতে একজন দুর্বল ব্যক্তিকে শক্তিশালী ও সাহসি করে তোলে। তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কারাতে প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্য অভিভাবকদেরও আহ্বান জানিয়েছেন।

মার্শাল শাহাজাদা জানান, শহীদ বরকত স্টেডিয়ামের তিন তলায় ১৯৮৫ সালে মার্শাল শাহ্জাদা কারাতে একাডেমী ও ১৯৯৫সালে গাজীপুর জেলা মার্শাল আর্ট অ্যাসোসিয়েশনের কার্যালয়ের উদ্বোধন করেন তৎকালীন গাজীপুর জেলা প্রশাসক দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবির ও সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শাহনওয়াজ দিলরুবা খান। তিনি এ দুই প্রতিষ্ঠান ছাড়াও জেলার কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ এর ১৫টি শাখায় কারাতে প্রশিক্ষণ দেন। তিনি এ যাবৎ ১৫ হাজার প্রশিক্ষণার্থীকে কারাতে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। তাদের অনেকেই আন্ত: ও আন্ত:জেলা পর্যায়ে পুরস্কৃত হয়েছেন। সর্বশেষ রূপায়ন সিটি শেখ রাসেল অনুর্ধ্ব ১৫ আন্ত:জেলা নারী কারাতে প্রতিযোগিতায় শ্রীপুর উপজেলার উৎস বিদ্যানিকেতনের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী মনি আক্তার (+৫৪ কেজি ক্যাটাগরিতে) স্বর্ণ পদক এবং একই প্রতিষ্ঠানের দশম শ্রেণির ছাত্রী নীলা আক্তার (+৪০ কেজি ক্যাটাগরিতে) তাম্র পদক পেয়েছেন। তাদের উভয়েই অনাথ। একটি এনজিও পরিচালিত উৎস বিদ্যানিকেতনের হোস্টেলে থেকেই তারা লেখাপড়া করছেন।

উৎস বিদ্যানিকেতনের প্রধান শিক্ষক মো. হুমায়ুন খালিদ মোহসীন জানান, ২০১৪ সাল থেকে গাজীপুরের শ্রীপুরে এ বিদ্যানিকেতন চালু হয়। এখানে প্লে থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত সব শিক্ষার্থীদের সাধারণ লেখাপড়ার পাশপাশি বিনামূল্যে কারাতে প্রশিক্ষণ, বাণিজ্যিক রান্না ও টেইলারিং প্রশিক্ষণ দেয়া হয় এবং তাদের আবাসনের ব্যবস্থাও করা হয়। পুরস্কার পেয়ে তারা খুবই আনন্দিত। তারা দুজনেই কারাতে বাদামি বেল্ট অর্জন করেছে। তাদের দুজনই অনাথ। তাদের বাবা-মা কারো সন্ধানও পাওয়া যায়নি।

শেয়ার করুন:

সর্বশেষ

সর্বাধিক জনপ্রিয়