রোববার,  ১৪ আগস্ট ২০২২

 

৩০ শ্রাবণ ১৪২৯ ,  ১৬ মুহররম ১৪৪৪

ভাওয়ালের কন্ঠ :: Bhawaler Kontho - ভাওয়ালের খবর

শোবার ধরন বলে দেবে আপনার ব্যক্তিত্বের গোপন রহস্য!

প্রকাশিত: ১৭:৩৫, ২৯ জুন ২০২২

শোবার ধরন বলে দেবে আপনার ব্যক্তিত্বের গোপন রহস্য!

শোবার ধরন

ক্লান্তি দূর করে প্রশান্তি আনার একটি প্রাকৃতিক উপায় হলো ঘুম। ঘুমের মাধ্যমে আমাদের ব্রেইন পুনরায় কাজ করার শক্তি ফিরে পায়। কিন্তু আপনি কি জানেন, এই ঘুম আমাদের ব্যক্তিত্ব সম্পর্কেও অনেক কিছু বলে দিতে পারে?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রতিটি মানুষেরই ব্রেইন আলাদা আলাদাভাবে কাজ করে। আর এই ব্যক্তিবিশেষের ব্রেইন অনুযায়ী প্রত্যেক ব্যক্তিরই ঘুমের জন্য পছন্দের শোবার ভঙ্গি আছে। আর তা থেকেই ঘুম ও স্নায়ু বিশেষজ্ঞরা বলতে পারেন মানুষের ব্যক্তিত্বের নানা গোপন রহস্য সম্পর্কে। নিউজ ১৮ বাংলা, এই সময় ও জি নিউজের মতো জনপ্রিয় ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এসব তথ্য।

ঘুমের পজিশন কিন্তু সবার এক হয় না। একটু খেয়াল করলে দেখবেন, পরিবারে সবারই ভিন্ন ভিন্ন ঘুমের পজিশন রয়েছে। কেউ নিজেকে গুটিয়ে, কেউ পাশ হয়ে, কেউ চিত হয়ে, কেউবা আবার উপুড় হয়ে ঘুমাতে পছন্দ করেন। আসুন জেনে নিই একেক ঘুমের ভঙ্গি আপনার ব্যক্তিত্বের কোন দিকগুলো তুলে ধরে।

১. নিজেকে গুটিয়ে ঘুমানো: গবেষণায় দেখা গেছে, বেশির ভাগ মানুষই নিজেকে গুটিয়ে ঘুমাতে ভালোবাসে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মানসিকভাবে সমস্যায় থাকলে বাড়তি নিরাপত্তা পেতে অবচেতনভাবেই মানুষ এভাবে শুয়ে থাকে। এরা বেশির ভাগই লাজুক এবং সুদৃঢ় ব্যক্তিত্বের অধিকারী হয়। স্বভাবেও অনেকটা শান্ত হয়। বেশি আবেগী আর অনুভূতিপ্রবণ হওয়ায় বাইরের দিকে তারা একটা রুক্ষ আবরণ পড়ে থাকে। স্বপ্নকে সত্যি করে তুলতে এরা কঠোর পরিশ্রম করতে জানে।

২. পাশ ফিরে ঘুমানো: গবেষকদের অনেকেই বলছেন, একপাশে ঘুমানোর অভ্যাস সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে। ডানপাশ হয়ে ঘুমানো অথবা বাঁপাশ হয়ে ঘুমানো।

যারা বাঁপাশ ফিরে ঘুমান তারা গম্ভীর এবং ধনী ব্যক্তিত্বের অধিকারী। খ্যাতিযুক্ত কাজের সঙ্গে জড়িত থাকতে এরা পছন্দ করেন। অন্যদিকে, যারা ডানপাশ ফিরে ঘুমাতে পছন্দ করেন, তারা উচ্চাভিলাষী হয়ে থাকেন।
আর যারা যেকোনো এক পাশ হয়ে ঘুমাতে পছন্দ করেন, তাদের ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তারা যেকোনো পরিস্থিতিতেই সহজে নিজেকে মানিয়ে নেয়ার ক্ষমতা রাখেন। প্রায়ই রাতে ঘুমাতে যেতে দেরি হয় তাদের।

৩. চিত হয়ে ঘুমানো: ব্যাক স্লিপার বা চিত হয়ে যারা ঘুমান, তারা সাধারণত কম কথা বলেন। এরা আত্মকেন্দ্রিক হয়। তারা তাড়াতাড়ি ঘুমাতে পারে না। তারা সহজেই মানুষকে আকর্ষণ করতে পারে। মৌলিক ভাবনা আর কল্পনাই সবার কাছে তাদের আরও আকর্ষণীয় করে তোলে। নিজেকে ফের উজ্জীবিত করতে তারা একা থাকতে পছন্দ করে।

৪. উপুড় হয়ে ঘুমানো: যারা এভাবে ঘুমান, তারাও স্বভাবে অনেকটা আত্মকেন্দ্রিক।  তারা সহজে কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ করে না; বরং কথা বলা বন্ধ করে দেয়াকে ভালো উপায় বলে মনে করে। নিজের গুণ ও সক্ষমতা নিয়ে তারা আত্মবিশ্বাসী, যা তাদের এগিয়ে নিয়ে চলে। চলার পথে নতুন কোনো সুযোগ এলে তারা তা গ্রহণ করতে পারে। প্রয়োজনে তারা ঝুঁকিও নিতে পারে। নিজেদেরর গণ্ডি ছেড়ে বেরিয়ে এসেও তারা তাদের লক্ষ্য ও প্রত্যাশা পূরণে ঝাঁপিয়ে পড়ার ক্ষমতা রাখে।

শেয়ার করুন:

সর্বশেষ

সর্বাধিক জনপ্রিয়