মঙ্গলবার,  ০৬ ডিসেম্বর ২০২২

 

২২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯ ,  ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভাওয়ালের কন্ঠ :: Bhawaler Kontho - ভাওয়ালের খবর

জি-২০ সম্মেলনে বিশ্ব নেতাদের সম্মানে গালা ডিনার

প্রকাশিত: ১১:৪০, ১৬ নভেম্বর ২০২২

জি-২০ সম্মেলনে বিশ্ব নেতাদের সম্মানে গালা ডিনার

জি-২০ সম্মেলনে বিশ্ব নেতাদের সম্মানে গালা ডিনার

ইন্দোনেশিয়ায় বালিতে জি টুয়েন্টি সম্মেলনে যোগ দিতে আসা বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানদেন সম্মানে হয়ে গেলো ঝাঁকঝমকপূর্ণ গালা ডিনার। মঙ্গলবারের (১৫ নভেম্বর) ওই অনুষ্ঠানে ইন্দোনেশিয়ার দেশীয় পোশাকে যোগ দিতে দেখা যায় বিশ্ব নেতাদের।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যা নামতেই, বালির গেরুদা বিষ্ণু কেঞ্চানা কালচারাল পার্কে একে একে হাজির হন চলমান জি টোয়েন্টি শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে আসা বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধান। তবে চমক ছিল তাদের পোশাকে। ইন্দোনেশিয়ার ঐতিহ্যবাহী দেশীয় পোশাকে অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত হন তারা। এমনকি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্ট্রিন ট্রুডোসহ পশ্চিমা বহু নেতা এদিন হাজির হন ওই পোশাকে। উপলক্ষ্যে সম্মেলনে যোগ দিতে আসা অতিথিদের সম্মানে গালা ডিনার।

ডিনারে তাদেরকে স্বাগত জানাতে সস্ত্রীক উপস্থিত ছিলেন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো।

ডিনারের পাশাপাশি ছিল মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন। সেখানে ইন্দোনেশিয়ার ঐতিহ্যবাহী পোশাকে চোখ ধাঁধাঁনো নৃত্য পরিবেশন করেন স্থানীয় শিল্পীরা। আর তা মন ভরে উপভোগ করেন বিশ্ব নেতারা।

তবে, জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলজ, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনসহ বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতা অনুপস্থিত ছিলেন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্টের আয়োজনে অনুষ্ঠিত এই গালা ডিনারে।

এদিকে এবারের জি-২০ সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো। তিনি বিশ্ব নেতাদের ‘অবশ্যই যুদ্ধ বন্ধ করতে’ বলেছেন। মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) দেশটির রাজধানী বালিতে সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে যুদ্ধের অবসান ঘটিয়ে মস্কো ও কিয়েভের মধ্যকার দ্বন্দ্ব দূর করারও আহ্বান জানান তিনি।

এছাড়া রাশিয়ার আট মাসের সামরিক অভিযান এবং পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের হুমকির নিন্দা জানানো যায় জি-২০ সম্মেলনে এমন একটি যৌথ ঘোষণার প্রতি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। রাশিয়া আন্তর্জাতিক অঙ্গন থেকে একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে তার প্রমাণ হিসেবে মার্কিন ও ইউরোপীয় কর্মকর্তারা বালিতে এ সম্মেলনের আয়োজন করেন। কিন্তু জাকার্তা একটি নিরপেক্ষ পররাষ্ট্র নীতি অনুসরণ করে এবং বৈঠকের আগে মস্কোকে আমন্ত্রণ না জানানোর পশ্চিমা চাপকে প্রত্যাখান করে।

তবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এ সম্মেলনে অংশগ্রহণ না করায় দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ তাদের দেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন। অন্যদিকে, জি-২০ জোটের সদস্য না হয়েও ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি এ সম্মেলনের বৈঠকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হবেন বলে জানা গেছে।

রাশিয়ার-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতি লাখো মানুষকে দারিদ্রের দিকে এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশকে মন্দার দিকে ঠেলে দেয়ার পর জি-২০ নেতারা বালিতে একত্রিত হয়েছেন।

শেয়ার করুন:

সর্বশেষ

সর্বাধিক জনপ্রিয়